দেখে নিন রুবিক্স কিউব নিয়ে ২ পর্বের সিরিজ পোস্ট আর হয়ে যান বস

Introduction

রুবিক্স কিউব (English: Rubik’s Cube) একটি ঘনাকার ধাঁধাঁ। ১৯৭৪ সালে এর্নো রুবিক এটি উদ্ভাবন করেন। রুবিক নিজে এর নাম দিয়েছিলেন ম্যাজিক কিউব (Magic Cube), কিন্তু পরবর্তীতে ১৯৮০ সালে Ideal Toys নামের এক খেলনা প্রস্তুতকারী কোম্পানী এর নাম দেয় রুবিক্‌স কিউব অর্থাৎ রুবিকের ঘনক।

৩X৩X৩ কিউব
৩X৩X৩ কিউব

সর্বাধিক প্রচলিত কিউবটি ৩x৩x৩ মাত্রাবিশিষ্ট ঘনকাকৃতির হয়ে থাকে। ঘনকের ১টি তএল আবার ৯টি করে বর্গক্ষেত্রে বিভক্ত থাকে। এই ছোট বর্গক্ষেত্রগুলি ৬টি ভিন্ন রঙের যেকোন একটি রঙে রাঙানো থাকে।সাধারণত ৬টি প্রচলিত রং হলঃ সাদা, হলুদ,সবুজ,নিল,লাল ও কমলা।
সাদার বিপরীতে থাকে হলুদ।
নীল এর বিপরীতে থাকে লাল।
লাল এর বিপরীতে থাকে কমলা।
রুবিক্‌স কিউবের এমনভাবে তৈরি করা হয় যে, ঘনকের যেকোন একটি তলের সবগুলো বর্গকে তাদের আপেক্ষিক অবস্থান পরিবর্তন না করেই একত্রে ঘোরানো সম্ভব। এভাবে ঘুরিয়ে রুবিকস্‌ কিউবকে বিভিন্ন রকম অবস্থায় নিয়ে যাওয়া সম্ভব। রুবিকস্‌ কিউবের বিভিন্ন রকম সংষ্করণ আছে, তার মধ্যে ২x২x২ মাত্রার পকেট কিউব,

                                                     ২X২X২ কিউব

৪x৪x৪ মাত্রার রুবিক্‌স রিভেঞ্জ (Rubik’s Revenge)

৪X৪X৪ কিউব

এবং ৫x৫x৫ মাত্রার প্রফেসর্‌স কিউব (Professor’s cube)

৫X৫X৫ কিউব

উল্লেখযোগ্য।
সমাধানকৃত অবস্থায় রুবিক্‌স কিউবের একটি তলে সবগুলো বর্গের রং একই হয়। সমাধানকৃত একটি রুবিকস্‌ কিউবের বিভিন্ন তলকে ইচ্ছামত ঘুরিয়ে এলোমেলো করা যায়। এরকম এলোমেলো অবস্থা বা কনফিগারেশন থেকে সমাধানকৃত অবস্থায় নিয়ে আসাই এই যান্ত্রিক ধাঁধাঁটির লক্ষ্য।

পরের পর্বে সমাধান দেওয়া হবে পরের পোস্ট এ দেখবেন কিভাবে কিউব মিলাতে হয়

 

Author: UDOY

Hlw,I am Udoy Saha Abir.

Leave a Reply

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here