🔥অগ্নিকান্ড এড়াতে করণীয়▶▶

১. গ্যাসের সিলিন্ডারে লিক আছে কিনা তা নিয়মিত চেক করুন।
২. জ্বলন্ত ম্যাচের কাঠি বা সিগারেটের আগুন যেখানে সেখানে ছুড়ে ফেলা থেকে বিরত থাকুন।
৩. রান্নার কাজ শেষে চুলা নিভিয়ে সন্দেহাতীতভাবে সুইচ অফ রাখুন। যাতে কোনো গ্যাস লিক না করে।
৪. বিদ্যুতের সংযোগ লাইন ও ওয়্যারিংগুলো নিয়মিত চেক করিয়ে নিন। নষ্ট হওয়া লাইন এবং যন্ত্রপাতি পরিবর্তন করিয়ে নিন।
৫. কখনো গায়ে আগুন লাগলে দৌড়াবেন না। শুয়ে গড়াগড়ি দিবেন।
৬. আগুন লাগলে নিরাপদ স্থানে যাওয়ার জন্য কখনোই লিফট ব্যবহার করবেন না। সিঁড়ি ব্যবহার করবেন।
৭. গ্যাসের চুলায় আগুন ধরলে ভেজা কাঁথা, কম্বল বা বস্তা ইত্যাদি দিয়ে ঢেকে দিন, আগুন নিভে যাবে।
৮. বাসায় বা কর্মক্ষেত্রে অগ্নিকান্ডের খবর পাওয়া মাত্র প্রথমেই বিদ্যুতের সুইচ অফ করুন।
৯. প্রতিটি বানিজ্যকেন্দ্র ও কারখানার অবশ্যই ফায়ার হাইড্রেন্ট স্থাপন করুন।
১০. কারখানা ও অফিসগুলোতে স্মোক ডিডেক্টর লাগিয়ে রাখুন।


১১. আপনার বাসা এবং অফিস এলাকার ফায়ার সার্ভিসের নাম্বার মোবাইল ফোনে সেইভ করে রাখুন।
১২. ফায়ার সার্ভিসের নাম্বার ঘরে বড় করে লিখে রাখবেন। নাম্বার মনে না থাকলে ৯৯৯ এ কল করে সাহায্য চাইবেন।
১৩. ঘরভর্তি ধোঁয়ার হাত থেকে বাঁচতে সোজা হয়ে না হেঁটে হামাগুড়ি দিয়ে বা ক্রলিং হয়ে বের হবেন। ধোঁয়া ওপরের দিকে থাকে, ফলে মেঝে থেকে কমপক্ষে ১ ফুট উচ্চতা পর্যন্ত ধোঁয়া মুক্ত থাকে।
১৪. কোনোভাবেই আগুন আক্রান্ত ঘর থেকে বের হতে না পারলে ছাদে উঠে যাবেন।
১৫. আগুন লাগলে কীভাবে নিরাপদ স্থানে চলে যেতে হয়, এই ব্যাপারে মহড়ার ব্যবস্থা করা।
১৬. কারখানায় সেইফ এক্সিটের ব্যবস্থা রাখবেন এবং এটা সবসময় খোলা রাখার ব্যবস্থা করবেন।
১৭. প্রতিটি বাসায় ও কারখানায় আগুন নির্বাপক যন্ত্র রাখবেন এবং সবাইকে এর ব্যবহার শিখিয়ে দিবেন।
১৮. একই মাল্টিপ্লাগে অনেক লোড একসাথে ( যেমন- টিভি, ফ্রীজ, মাইক্রোওয়েভ ওভেন, ইস্তিরি ) ব্যবহার করবেন না।
১৯. বৈদ্যুতিক সুইচ বোর্ড বা মাল্টিপ্লাগের আশপাশে কাগজপত্র বা সহজে পুড়ে যায় এমন কিছু রাখবেন না।
২০. বাসায় দাহ্য বস্তু থাকলে খেয়াল রাখতে হবে তা যেন আগুনের উৎস থেকে দূরে যথেষ্ট দূরে থাকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here