WiFi বর্তমান সময়ে যেন এটাকে ছাড়া একমুহুর্ত কল্পনা করা যায় না। কোনো প্রশ্ন আসলেই সেটা আমরা খোঁজা শুরু করি গুগলে বা এরকম কোনো সার্চ ইঞ্জিনে। আর এটাই এখন সবথেকে স্মার্ট ট্রেন্ড। কোনো কিছু শিখতে চাইলে কিংবা কোনো প্রোডাক্ট রিভিউ চাইলে আমরা সার্চ করি ইউটিউব কিংবা গুগলে।

আর আমাদের এই ইন্টারনেট এর সাথে যে বন্ধন সেখানে সবথেকে বড় বাঁধা হয়ে দাঁড়ায় লিমিটেড ইন্টারনেট প্যাকেজ। সস্তা মুল্য বা আনলিমিটেড ইউজ যায় বলি না কেন ওয়াইফাই এখন একমাত্র এবং সবথেকে বেস্ট চয়েস। বর্তমানে আমরা যে ওয়াইফাই নেটওয়ার্ক ব্যবহার করি সেটার ভার্সন হচ্ছে WiFi 5 এবং এটার স্পিড ম্যাক্সিমাম 3.5 Gb ( bit per second not byte )।

কিন্তু, সাম্প্রতিক সময়ে ওয়াইফাই এর নতুন ভার্সন এসেছে যেটা হচ্ছে WiFi 6. আর আমরা আজকে জানবো এই নতুন প্রযুক্তি সম্পর্কে, এটা কীভাবে, কেন এবং কবে নাগাদ ব্যবহার করতে পারবো সবকিছু একটা মাত্র লেখাতে পেতে পড়ে ফেলুন এই লেখাটি।

WiFi ভার্সন কি কোনো ফ্যাক্ট ??

এটা খুবই লেইম প্রশ্ন। কারণ, সবকিছুই তার আপডেটেড ভার্সনে উন্নতির দিকে ধাবিত হয়। কোনো এপ্স থেকে শুরু করে যেকোন প্রোডাক্ট এরও ভার্সন থাকে। আর ওয়াইফাই এরও সেরকম ভার্সন আছে।

এখন অবধি WiFi এর তিনটা ভার্সন চালু আছে যথাক্রমে WiFi, WiFi 2, WiFi 3, 4, 5 এবং সবথেকে আধুনিক WiFi 6. আগের থেকে অনেক বেশি স্পিড সহ এই নতুন প্রযুক্তি এখন এভেইলেভল।

WiFi 5 থাকতে WiFi 6 কেন আসলো ??

এটা ভালো প্রশ্ন করেছেন। আমরা দেখে থাকি কোনো একটা ভার্সনে বাগ থাকলে কিংবা কোনো ফিচার বৃদ্ধি করতে অথবা কোনো মেজর চেঞ্জ থাকলে ভার্সন পরিবর্তন হয়। ঠিক তেমনই WiFi 5 এর কিছু মেজর বাগ + কিছু পুরাতন সিস্টেম এর কারনে এটাকে WiFi 6 এ উন্নিত করেছে এর টিম। কিন্তু,

WiFi 6 এর ফিচার গুলো

এক নজরে আগে দেখে নেই WiFi 6 নতুন কি কি সেবা আনছে আমাদের জন্য।

  1. আগের তুলনায় অনেক বেশি স্পিড।
  2. হাই লেভেল সিকিউরিটি।
  3. বাফারিং ছাড়াই মাল্টি ইউজার এক্সপেরিয়েন্স।
  4. শক্তিশালী এনক্রিপশন প্রযুক্তি।

এছাড়া WiFi এ যে যে ফিচার গুলো আছে সেগুলো একটাও বাদ দেয়া হয় নি।

স্পিড

আগেই বলেছি বর্তমান WiFi 5 এর স্পিড হচ্ছে 3.5 Gb আর নতুন WiFi 6 এর আপডেটেড স্পিড হচ্ছে এর ৩ গুন। যা প্রায় 9.6 Gb পর্যন্ত স্পিড দিতে সক্ষম। আর এটাই করে তুলেছে একে একদম আপডেটেড। যখন ঘাড়ের উপর নিঃশ্বাস ফেলছে 5G ঠিক তখন এরকম স্পিড সত্যিই অনেক ভালো।

সিকিউরিটি

WiFi 6 এর অফিশিয়াল রিলিজে বলা হয়েছে এর সিকিউরিটি হচ্ছে সবথেকে বড় ধামাকা। কারণ, WiFi 5 এর সিকিউরিটি সিস্টেম অবশ্যই বর্তমান সময়ের প্রেক্ষিতে অত্যন্ত দুর্বল। WiFi 5 এ সিকিউরিটি হিসেবে আছে WPA এবং WPA 2 । যদিও WPA ডিফল্ট ভাবে এনাবল থাকে। আর সামান্য এন্ড্রোয়েড এপ দিয়েও এই WPA সিকিউরিটি ব্রেক করা যায়।

যেটা আজকাল কিছু ব্যক্তিদের হ্যাকার বানিয়ে দিচ্ছে যদিও এটা সিম্পল সিকিউরিটি প্যাচ। কারণ, অনেকেই WPA থেকে WPA 2 তে আপডেটেড করেন না। যেখানে WPA 2 এর সিকিউরিটি ব্রেক করা বেশ জটিল। যায় হোক, বর্তমানের WiFi 6 এসব ঝামেলাকে বাই বাই করে নতুন সিকিউরিটি এনেছে যেটা WPA 3। এবং WPA 2 থাকবে ডিফ্লট হিসেবে।

অর্থাৎ, আপনি যদি WPA 3 তে আপডেট নাও করেন তবুও এটা বেশ ভালো সিকিরিটি দিবে আর যদি WPA 3 তে চেঞ্জ করেন তাহলে তো কথায় নাই।

মাল্টি ইউজার এক্সপেরিয়েন্স

আমরা সাধারণত কোনো একটা ওয়াইফাই নেটয়ার্কে বেশ অনেকজন মিলে কাজ করি। আর সেসময় কেউ একজন যদি ভিডিও স্ট্রিমিং করতে থাকে তাহলে অন্যদের ব্রাউজ করায় কষ্ট হয়ে যায়। আর ভিডিং চ্যাটিং এর সময় বাফারিং তো আছেই।

কিন্তু, WiFi 6 এসব ঝামেলা দূর করে দেবে নিমিষেই। কারণ, একই নেটওয়ার্ক এর আওতায় আপনি Multi User Online Gaming + Video Streaming + Video Chat এর মতো অনেক গুলো কাজ একসঙ্গে করতে পারবেন।

এনক্রিপশন

আমরা প্রায়ই শুনে থাকি পাবলিক ওয়াইফাই নেটয়ার্কে থাকলে সোশ্যাল মিডিয়া বা এরকম সার্ভিস ইউজ এর সময় ভিপিএন ব্যবহার করার কথা। যেন আইপি ট্র্যাক করা না যায়। আবার কাউকে তথ্য পাঠাতে গিয়ে একই নেটওয়ার্কের অন্য একজনের কাছে চলে যাওয়ার মতো ঘটনা ঘটে। কিন্তু, WiFi 6 এ আছে নতুন এনক্রিপশন সিস্টেম যেটা সব তথ্যকে এনক্রিপ্ট করে তার সেন্ড হবে। অর্থাৎ, টোটাল সিকিউর।

Author:

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here